তথাকথিত সভ্যতা থেকে মাত্র পাঁচ কিলোমিটার দূরে, সে এক অন্য পৃথিবীর মত

BartaDarpan Desk

আলিপুরদুয়ার : তথাকথিত সভ্যতা থেকে মাত্র পাঁচ কিলোমিটার দূরে, সে এক অন্য পৃথিবীর মত।জলদাপাড়া বনবিভাগের ধুমচি অরণ্য লাগোয়া পটে আঁকা গ্রাম ধুমচি-রাভা বস্তি।আলিপুরদুয়ারের মাদািহাট ব্লকের ওই গ্রামে বসবাস ৭৫টি রাভা পরিবারের।সকলেই খৃষ্টান ধর্মালম্বী।এক সময় শুধু মাত্র বনের উপর নির্ভর করেই বাঁচতেন ওই গ্রামের বাসিন্দারা।বছরভর নানান ধরনের বন্যপ্রাণিদের সাথে লড়াই সংগ্রাম করেই বাঁচতে হ’ত ওঁদের।বর্তমান রাজ্য সরকারের সহায়তায় নতুন করে বাঁচার পথ পেয়েছিলেন ওই গ্রামের বাসিন্দারা।উষর জমিতে পুকুর খনন করে মাছ চাষ ঘুরিয়ে দিয়েছিল ওই রাভা গ্রামের অর্থনীতি। সঙ্গে বুনন শিল্পের মাধ্যমেও বাড়তি রোজগারের পথ পেয়েছিলেন ওই বনবস্তির বাসিন্দারা। কিন্তু করোনার আবহের লক ডাউন যেন আচমকাই থমকে দিয়েছে ওই গ্রামকে।পুকুরে মাছ থাকলেও তা বাজারজাত করতে পারছেন না তাঁরা।তাঁদের বোনা বাহারি গামছা পড়ে রয়েছে ঘরে ঘরে।সুতোর অভাবে বন্ধ বুনন শিল্প। ঘরে ঘরে থাবা বসিয়েছে অভাব।তবুও ওই রাভা জনজাতির মানুষ গুলো মাঝে মাঝেই তাঁদের মাছ ধরতে যাওয়ার সময়ের গান ‘নাকচ্যাড়ানি’র সুর তাল ছন্দে নেচে ওঠেন সব অভাব ভুলে।জীবন সেখানে থমকে থেকেও তখন বাঁচার পথ খোঁজে ওই সুরেলা গানের মধ্যে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

খবরের জেরে দক্ষিণ দিনাজপুরের ৩ অনাথ শিশুর পাশে দাঁড়ালো মহাকুমা প্রশাসন

পল মৈত্র,দক্ষিণ দিনাজপুরঃ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশীহারী ব্লকের ঘাসিপুর এলাকার অনাথ শিশুর পাশে দাঁড়ালো মহকুমা প্রশাসন। জানাযায়, লক ডাউনের জেরে গত কদিন ধরেই অনাহারে দিন কাটাচ্ছিল ঘাসিপুর এলাকার ৩ অনাথ শিশু। সংবাদ মাধ্যমে এই খবর সম্প্রচার হয় তার পরই এইদিন ৩ অনাথ শিশুকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা। খবর […]
অনুগ্রহ করে আমাদের পোস্ট চুরি করার চেষ্টা করবেন না!!