২৪ বছরের জেল হল অপরাধ জগতের কিংপিন মধুচক্রের পাণ্ডা সোনু পাঞ্জাবন

BartaDarpan Desk

ডেস্কঃ- দিল্লির বৃহত্তম মধুচক্রের পাণ্ডা সোনু পাঞ্জাবনকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দিল রাজধানীর এক বিশেষ আদালত। সোনু পাঞ্জাবনের বিরুদ্ধে মানব পাচার, অপহরণ, মধুচক্র চালানো, জোর করে নাবালিকাদের দেহ ব্যবসায় নামানোর মত বহু অভিযোগ রয়েছে। সোনু পাঞ্জাবন ওরফে গীতা অরোরার মূল পেশা নাবালিকাদের অপহরণ করে ‘হাই প্রোফাইল’ গ্রাহকদের যৌন চাহিদা মেটানো। এর আগেও বহুবার গ্রেফতার করা হয়েছে তাকে।

অবশেষে এক ১৩ বছরের নাবালিকাকে জোর করে দেহ ব্যবসায় নামানোর অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হল সোনু। ২০১৩ সালে সোনু ওই নাবালিকাকে অপহরণ করে। কিন্তু, সোনুর ডেরা থেকে পালিয়ে যায় ওই নাবালিকা। পুলিশের কাছে গিয়ে ওই নাবালিকা অভিযোগ জানিয়েছিল, সোনুর সঙ্গী সন্দীপ বেদওয়াল তাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে অপহরণ করে তাকে। তারপর ১২ জন মিলে তাকে ধর্ষণ করে। তারপর সন্দীপের কাছ থেকে তাকে কিনে নেয় সোনু। সেখানে তাকে ‘হাই প্রোফাইল’ গ্রাহকদের উপযুক্ত করার জন্য ইংরেজি শেখানো হয়। বিশেষ ইঞ্জেকশন দেওয়া হয় যাতে দ্রুত তাঁর শারীরিক বৃদ্ধি হয়। তারপর চারজনের কাছে বিক্রি করে সোনু। ওই

নাবালিকার দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে ৩৫ বছর বয়সী গীতা অরোরাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কারাদণ্ডের পাশাপাশি তার ৬৪,০০০ টাকা জরিমানা করেছে আদালত। বেআইনি মানব পাচারের অপরাধে সোনুকে প্রথম ১৪ বছর জেলের সাজা দেওয়া হয়। সোনুর সাজা ঘোষণার সময় বিচারপতি বলেন, “একজন মহিলা হয়ে এক নাবালিকার সঙ্গে যে ব্যবহার সে করেছে, তাতে নিজেকে মহিলা বলে পরিচয় দেওয়ার অধিকার হারিয়েছে সোনু। তার ভয়ংকরতম শাস্তি হওয়া উচিত”।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

সংবাদপত্রের সঙ্গে আটকানো মাস্ক, সচেতনতার প্রচার কাশ্মীরে

ডেস্কঃ- প্রতিনিয়ত বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। সচেতনতা বাড়ানোর কথা বলা হচ্ছে, তবুও মানুষ যেন অগ্রাহ্য করছে বিষয়টিকে। করোনার বিরুদ্ধে জনগণকে সতর্ক করতে কাশ্মীরের এক উর্দু সংবাদপত্র অভিনব ভূমিকা নিল। খবরের কাগজটির প্রথম পাতার সঙ্গে আটকে দিল একটি সার্জিক্যাল মাস্ক। বৃহস্পতিবারে ‘রোশনি’ নামক পত্রিকায় মাস্ক ছাপিয়ে বের করা হয়েছে। নিচে উর্দু […]
অনুগ্রহ করে আমাদের পোস্ট চুরি করার চেষ্টা করবেন না!!